সুয়েজ খালে আটকে পড়া সেই জাহাজ এখনো সরানো সম্ভব হয়নি

24 24

Sangbad

প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৯, ২০২১

মিসরের সুয়েজ খালে আটকে পড়া মালবাহী জাহাজটি ছয় দিনেও সরানো সম্ভব হয়নি। ফলে ওই রুটের দুই প্রান্তে ৩০০ জাহাজের জট তৈরি হয়েছে।

শনিবার ভরা জোয়ারেও এমভি এভার গিভেন নামের জাহাজটি সরানোর চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বলে জানা গেছে। রোববার সন্ধ্যা নাগাদ জাহাজটি চালিয়ে নেওয়ার মত সুবিধাজনক পর্যায়ে আবার ভাসানো যেতে পারে বলে তারা আশা করেছিলেন সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষ।

লোহিত সাগরের সঙ্গে ভূমধ্যসাগরকে যুক্ত করা বিশ্বের অন্যতম ব্যস্ত এই বাণিজ্য পথ বন্ধ করে আড়াআড়ি আটকে আছে জাহাজটি।

আটকে থাকা এভার গিভেন জাহাজটিকে সরাতে শনিবার প্রায় ২০ হাজার টন বালু সরানো হয়। ১৪টি টাগবোট টানাটানি করে বালুচর থেকে এভার গিভেনকে নড়ানোর চেষ্টা করে। তবে শক্তিশালী স্রোত আর বাতাসে উদ্ধার চেষ্টা বাধাগ্রস্ত হয়। টাগবোটগুলো

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জেনারেল ওসামা রাবি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, জাহাজের তলদেশ দিয়ে পানি চলতে শুরু করেছে।

বুধবার থেকে উদ্ধার অভিযান শুরু করে সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষ (এসসিএ)। উদ্ধারকাজে শুরুতে যুক্ত হয় মিসরের আটটি টাগবোট। কোনোভাবেই আড়াআড়ি হয়ে আটকে থাকা বিশাল জাহাজটির মুখ ফিরিয়ে আবারও জলে ভাসানো সম্ভব হয়নি। গতকাল শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসসিএর প্রধান ওসামা রাবি জানান, খালে পানির প্রবাহে জোর কম থাকায় বিশাল জাহাজটি জলে ভাসানো যাচ্ছে না।

এসসিএ বলছে, জাহাজটি জলে ভাসাতে ড্রেজিং করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। মাটি খুঁড়ে জাহাজটির প্রপেলার মুক্ত করা হবে। এতে সময় লাগবে। কবে নাগাদ জাহাজটি পুরোপুরি উদ্ধার করা যাবে, সেটা অনিশ্চিত। ওসামা রাবি বলেন, ‘প্রবল বাতাস আর প্রতিকূল আবহাওয়া এই ঘটনার পেছনে প্রধান কারণ না–ও হতে পারে। এর পেছনে কারিগরি কিংবা মানবসৃষ্ট ত্রুটি থাকতে পারে।’